ডাক্তারি পেশার মাধ্যমে মানুষের সরাসরি সেবা করা যায়-মানব জমিন

ডাক্তারি পেশা এমন এক মহৎ পেশা যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের সরাসরি সেবা প্রদান করা সম্ভব বলে মনে করেন ওষুধ প্রশাসনের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মোস্তাফিজুর রহমান। তার দৃষ্টিতে আদ্‌-দ্বীন মেডিকেল কলেজ দেশের সেরা মেডিকেল কলেজগুলোর মধ্যে অন্যতম। যারা এখানে ভর্তি হয়েছে আশা করি ভবিষ্যতে ভালো ডাক্তার হয়ে বের হবে। গতকাল আদ্‌-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মহাপরিচালক আরো বলেন, আমরা সাধারণ মানুষের মানসম্মত ওষুধ দেয়ার বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছি। আর ডাক্তারদের দায়িত্ব হবে মানুষকে মানসম্মত সেবা প্রদান করা।
আদ্‌-দ্বীনে এসে আমি মুগ্ধ হয়েছি। হাসপাতাল ও কলেজের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি। আদ্‌-দ্বীন স্বল্পমূল্যে মানসম্মত সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে চলেছে। আশা করি ভবিষ্যতে এটা ধরে রাখা সম্ভব হবে। আর আমাকে যখন ডাকা হবে তখনই পাওয়া যাবে। ভালো কাজের সঙ্গে আমি সব সময় আছি।
কলেজের অধ্যক্ষ ডা. আফিকুর রহমান বলেন, তোমরা একটা ব্যতিক্রমী পেশার সঙ্গে যুক্ত হবে। সমাজের অন্যান্য পেশা বা মানুষ থেকে তোমরা ব্যতিক্রম। তিনি বলেন, আজ তোমাদের (শিক্ষার্থী) জন্য বিশেষ একটি দিন। আজ থেকে তোমাদের নতুন এক জীবনের সূচনা হয়েছে। এখন থেকে তোমাদের নতুন জীবন ও স্বপ্ন নিয়ে এগোতে হবে। তাই শিক্ষা জীবনের প্রথম দিন থেকে তোমরা শপথ কর যে চিকিৎসক হওয়ার পর সারা জীবন মানুষের সেবা করে যাবে। সভাপতির বক্তব্যে আদ্‌-দ্বীন ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ডা. শেখ মহিউদ্দিন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, তোমরা নিঃসন্দেহে সৌভাগ্যবতী। কারণ টাকার অভাবে অনেকেই মেডিকেল কলেজে পড়তে পারে না। তোমাদের মা-বাবা সেই সুযোগ করে দিয়েছে। তোমরা মা-বাবার প্রতি কৃতজ্ঞ থাকো। তিনি বলেন, সরকারি কলেজে সুযোগ পাওনি বলে মন খারাপ করার কোনো কারণ নেই। এখান থেকেই ভালো চিকিৎসক হতে পারবে বলে আমি আশা করি। তিনি আরো বলেন, আমি স্বপ্ন দেখি আদ্‌-দ্বীন মেডিকেল কলেজ একদিন বিশ্বের মধ্যে সেরা কলেজে পরিণত হবে। এছাড়াও প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীরা তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করে। নবীনবরণ অনুষ্ঠানে নতুন শিক্ষার্থী, ক্লাস শিক্ষক, বিভাগীয় প্রধানদের পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। নবীনবরণ অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আদ্‌-দ্বীন মেডিকেল কলেজসমূহের পরিচালক ডা. তরিকুল ইসলাম, মেডিকেল এডুকেশন রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক ডা. আনোয়ার হোসাইন মুন্সি, শিশু বিভাগের প্রধান ডা. হামিদুর রহমান, মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. এম এন নাগ, ফার্মাকোলজি বিভাগের প্রধান সৈয়দ আশরাফুজ্জামান। কলেজের নিয়মকানুন তুলে ধরেন হাসপাতালের পরিচালক ডা. নাহিদ ইয়াসমিন। অভিভাবকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডেইলি সান পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক শিহাবুর রহমান, কাশ্মীর থেকে আসা সৈয়দ বিলাল আহমেদ কিরমানি, জনতা ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আতাউর রহমান। নবীনবরণ উপলক্ষে পিঠা উৎসবের আয়োজন ছাড়াও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।


Share this news to social network :
Leave a reply